মাংসপেশিতে টান

মাংসপেশিতে হঠাৎ টান লাগার অসহনীয় অভিজ্ঞতা হয়নি, এমন মানুষ খুব কমই আছেন। এটি সংকোচন ও প্রসারণের মাধ্যমে কাজ করে। সংকোচনের পর আবার প্রসারিত হয় বলে আমরা তেমন বুঝতে পারি না। কিন্তু এ সংকোচন দীর্ঘ সময়ের জন্য হলে প্রচণ্ড ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। একে বলে মাসল ক্রাম বা মাংসপেশিতে টান।হঠাৎ করেই টান লেগে যেতে পারে। এটা শরীরের যে কোনো মাংসপেশিতে হতে পারে। তবে ঊরু (হ্যামস্ট্রিং) ও পায়ের পেছনের দিকের মাংসপেশিতে (কাফ) টান লাগে বেশি। টান লেগে গেলে সঙ্গে সঙ্গে সঠিক ব্যবস্থা নিতে হয়। মাংসপেশিতে টান লাগার সঠিক কারণ জানা যায় না। তবে এর পেছনে বেশ কিছু বিষয় জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে।ব্যায়ামের সময় মাংসপেশির সঠিক সমন্বয় না হলে, দীর্ঘ সময় ধরে ব্যায়াম করলে, ব্যায়ামের প্রথম দিনই বেশি সময় ব্যায়াম করলে, সাঁতার কাটার পর, পানিশূন্যতা, যেমন-খুব বেশি ঘাম, ডায়রিয়া বা খুব বমি হলে হঠাৎ করে মাংসপেশিতে টান পড়ে। একটি বা একগুচ্ছ মাংশপেশি অনৈচ্ছিক সংকোচন হয়।এ ছাড়া স্নায়ুতে চাপ পড়লে, রক্ত চলাচল ব্যাহত হলে ও খাবারে খনিজ লবণের পরিমাণ কম হলেও টান লাগতে পারে। রক্তস্বল্পতা, কিডনির রোগ ও ডায়াবেটিসেও এ সমস্যা দেখা দিতে পারে। যদি বারবার মাংসপেশিতে টানের সমস্যা দেখা দেয় বা রাতের ঘুম বা স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হয়, তবে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।লেখক : ব্রেইন অ্যান্ড স্পাইনাল সার্জন সহযোগী অধ্যাপকনিউরো সার্জারি বিভাগ বিএসএমএমইউচেম্বার : আল-রাজি হাসপাতাল, ফার্মগেট, ঢাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares